মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ১০ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোঃ মুনিরুজ্জামান, এনডিসি, পিএসসি

ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোঃ মুনিরুজ্জামান, এনডিসি, পিএসসি ১৯৭০ সালের ০৫ ডিসেম্বর টাঙ্গাইল জেলার নাগরপুর থানার অন্তর্গত গুহুলী গ্রামে জন্মগ্রহন করেন এবং একই গ্রামের সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় হতে প্রাথমিক শিক্ষা সম্পন্ন করেন। পাকুটিয়া বি সি আর জি উচ্চ বিদ্যালয়ে ৭ম শ্রেনী পর্যন্ত অধ্যায়নের পর তিনি ১৯৮২ সালে ঐতিহ্যবাহী মির্জাপুর ক্যাডেট কলেজে ভর্তি হন।  মির্জাপুর ক্যাডেট কলেজ হতে তিনি যথাক্রমে ১৯৮৬ ও ১৯৮৮ সালে কৃতিত্বের সাথে এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হন। এরপর তিনি ১৯৮৯ সালের ১০ জানুয়ারি ২৩তম দীর্ঘ মেয়াদি কোর্সের একজন ক্যাডেট হিসাবে সামরিক প্রশিক্ষণ লাভের জন্য বাংলাদেশ মিলিটারি একাডেমিতে যোগদান করেন। সফলভাবে সামরিক প্রশিক্ষণ সম্পন্ন করে  ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মুনির ১৯৯০ সালের ২১ ডিসেম্বর বাংলাদেশ মিলিটারি একাডেমি হতে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর প্রকৌশল কোরে নিয়মিত কমিশন লাভ করেন। তিনি গত ২৪ জানুয়ারি ২০১৯ তারিখে বাংলাদেশ জরিপ অধিদপ্তরে সার্ভেয়ার জেনারেল হিসেবে যোগদান করেন।

 

ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মুনির বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় হতে পুরোকৌশলে (সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং) স্নাতক ডিগ্রি লাভ করেন এবং তিনি বাংলাদেশ ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউটের (আইইবি) একজন সহযোগী সদস্য। এছাড়া তিনি জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় হতে মাস্টার্স ইন ডিফেন্স স্টাডিজ (এমডিএস)  এবং বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অফ প্রফেশনালস (বিইউপি) হতে সিকিউরিটি এন্ড স্ট্র্যাটেজিক স্টাডিজে এমফিল পার্ট-১ সম্পন্ন করেন। 

 

তিনি তাঁর বর্ণাঢ্য সামরিক জীবনে দেশ ও বিদেশে সেনাবাহিনীর তত্ত্বাবধানে সকল অত্যাবশ্যকীয় সামরিক প্রশিক্ষণ অত্যন্ত সফলতার সাথে সম্পন্ন করেছেন।  তিনি ডিফেন্স সার্ভিসেস কমান্ড এন্ড স্টাফ কলেজ হতে পিএসসি ও বাংলাদেশ ন্যাশনাল ডিফেন্স কলেজ হতে এনডিসি ডিগ্রি লাভ করেন। চীনের নানজিংয়ে অবস্থিত পিএলএ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় হতে তিনি রিভার ক্রসিং ইঞ্জিনিয়ারিং এর উপর স্নাতকোত্তর ডিপ্লোমা সম্পন্ন করেন।

 

ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মুনির তাঁর দীর্ঘ সামরিক জীবনে সেনাবাহিনীর বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে কমান্ড, স্টাফ এবং প্রশিক্ষক হিসেবে দায়িত্বপালন করেছেন। তিনি পার্বত্য চট্টগ্রামে সন্ত্রাস দমন অভিযানে   সক্রিয়ভাবে অংশগ্রহণ করে শান্তি প্রতিষ্ঠায় গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখেছেন। এছাড়াও তিনি জাতিসংঘের তত্ত্বাবধানে আফ্রিকার বিভিন্ন দেশে শান্তি ও স্থিতিশীলতা রক্ষায় নিয়োজিত ছিলেন।  রুয়াণ্ডায় একজন স্টাফ অফিসার হিসেবে, সিয়েরা লিয়নে কন্টিনজেন্ট উপ-অধিনায়ক হিসেবে এবং লাইবেরিয়াতে কন্টিনজেন্ট অধিনায়ক হিসেবে সফলভাবে দায়িত্ব পালন করেন এবং এসব দেশের অবকাঠামোগত ও আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে বিশেষ ভূমিকা রেখেছেন। ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মুনির পৃথিবীর অনেক দেশ ভ্রমণ করেছেন। তাঁর ভ্রমণকৃত দেশসমূহের মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, অষ্ট্রেলিয়া, জাপান, চীন, হংকং, থাইল্যান্ড, সিংগাপুর, মালয়েশিয়া, ইন্দোনেশিয়া, ভারত, বেলজিয়াম, কেনিয়া, ঘানা, গিনি, আইভরি কোস্ট, রুয়ান্ডা, সিয়েরালিওন, লাইবেরিয়া ইত্যাদি। 

 

ব্যক্তিগত জীবনে তিনি বিবাহিত এবং এক ছেলে ও এক মেয়ের গর্বিত পিতা। খেলাধুলা, বরশি দিয়ে মাছ ধরা এবং ভ্রমণের প্রতি তাঁর তীব্র আগ্রহ রয়েছে।


Share with :

Facebook Facebook